[স ম্পা দ কী য়] ঈদযাত্রার কষ্ট এবং বিশ্বকাপের আনন্দ

Print Friendly and PDF

দেখতে দেখতে আবার ঈদুল ফিতর সামনে হাজির হচ্ছে। মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব বলে এই ঈদে মানুষের তাড়া থাকবে ঘরে ফেরার। লাখ লাখ মানুষ নিজ নিজ গ্রামে ফিরবে আপনজনদের সঙ্গে ঈদ আনন্দ ভাগ করে নেয়ার জন্য। যানবাহনে চাপ বাড়বে। সড়কেও পড়বে চাপ। প্রতিবছর ঈদকে সামনে রেখে উৎকণ্ঠা জাগে কীভাবে কম কষ্টে মানুষ ঈদযাত্রায় অংশ নিতে পারে। এবারও সেই উৎকণ্ঠা কমেনি। বরং উদ্বিগ্নতা বাড়ছে। কেননা, গোটা দেশের সড়ক মহাসড়কের বেহাল দশার সুব্যবস্থা আজও করা সম্ভব হয়নি। উন্নয়ন কাজ চলছে বলে অনেক জায়গায় এই দুঃখদশা আরও বেগবান।
যদিও সরকারের যোগাযোগমন্ত্রী বলছেন, এবার ঈদযাত্রার কষ্ট সহনীয় করা হবে, তবুও বাস্তব অভিজ্ঞতা বলছে ভিন্ন কথা।
ইতোমধ্যে ঈদযাত্রায় রেলের আগাম টিকিট কাটার ক্ষেত্রে মানুষের ভিড় প্রমাণ করেছে ব্যবস্থাপনায় সুশাসন আনা সম্ভব হয়নি। এবার তাই সরকারের সামনে চ্যালেঞ্জ হচ্ছেÑ এক. সড়ক-মহাসড়কগুলোকে দ্রুত চলন উপযোগী করা, দুই. ঈদযাত্রার সময় রাস্তায় ট্রাফিক সুব্যবস্থাপনার মান নিশ্চিত করা, তিন. পরিবহন ব্যবস্থাপনায় ন্যূনতম শৃঙ্খলা সুনিশ্চিত করা।
সরকার যদি এই কাজগুলো সচল রাখে, তাহলে ঈদে ঘরমুখো মানুষ যাওয়ার সময় এবং ফেরার সময় কিছুটা স্বস্তি পাবে। তাদের দুঃখ-কষ্ট কিছুটা লাঘব হবে। ঈদযাত্রায় তাই সড়ক, রেল, নৌপথ সর্বত্রই সুব্যবস্থাপনা সর্বাগ্রে কাম্য। আশা করি সরকার এ বিষয়ে অধিকতর মনোযোগী হবে।

দুই.
ঈদের আগেই শুরু হচ্ছে বিশ্বকাপ ফুটবল আসর। গোটা বিশ্বের সঙ্গে বাংলাদেশও কাঁপছে এই ফুটবল জ্বরে। ১৪ জুন থেকে ১৫ জুলাই ২০১৮, মাসব্যাপী এই আসর বাংলাদেশের মানুষ যাতে নির্বিঘেœ উপভোগ করতে পারে সে কারণে বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত রাখা একটা বড় নিয়ামক। গরমের সঙ্গে সঙ্গে দেশজুড়ে বিশেষত গ্রামাঞ্চলে, উপজেলা পর্যায়ে বিদ্যুতের লোডশেডিং বাড়ছে। বিশ্বকাপ চলার সময় লোডশেডিংয়ের তীব্রতা কমাতে না পারলে সেটা নানান দুর্ঘটনার জন্ম দিতে পারে। কর্তৃপক্ষকে সেদিকে বিশেষ নজর দিতে হবে।

তিন.
ঈদের আনন্দে ভাসুক সবাই। বিশ্বকাপ ফুটবলের উত্তেজনা উপভোগ করুক দেশের মানুষ। সবার জন্য ঈদের শুভেচ্ছা।

১৪ জুন ২০১৮  বর্ষ ১১  সংখ্যা ১

সাপ?তাহিক পতিবেদন

নিয়মিত বিভাগ
  • ধানম-িতে উদ্বোধন হলো ‘তাগা ম্যান’
  •  মতামত সমূহ
    পিছনে 
     আপনার মতামত লিখুন
    English বাংলা
    নাম:
    ই-মেইল:
    মন্তব্য :

    Please enter the text shown in the image.