[প্রকৃতি ও জীবন] এ সপ্তাহের পর্ব- ‘চরাঞ্চলের জীববৈচিত্র্য’

Print Friendly and PDF

নদীমাতৃক বাংলাদেশ। উত্তরের পার্বত্য অঞ্চল থেকে বয়ে আসা নদ-নদী দেশের ভেতর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। জলপ্রবাহের সঙ্গে বয়ে আসা বিপুল পরিমাণ বালু ও পলিমাটি জমা হয়। অবশেষে নদীর তলদেশ ভরাট হয়ে সৃষ্টি হয় চর। এসব চর কখনো স্থায়ী, কখনো অস্থায়ী। আমাদের দেশে দু’ ধরনের চর দেখা যায়; দ্বীপচর ও সংযোগ চর। দ্বীপচর চারদিকে পানিবেষ্টিত থাকে। আর সংযোগ চর সাধারণত মূল ভূখ-ের সঙ্গে যুক্ত। এসব চরাঞ্চলে মিলেমিশে বেড়ে ওঠে বিভিন্ন ধরনের উদ্ভিদ ও প্রাণী।
বাংলাদেশের উপকূলীয় চর এবং অভ্যন্তরীণ নদীর চরের মধ্যে পার্থক্য রয়েছে। উপকূলীয় বেশিরভাগ এলাকাতে ছোট-বড় চর রয়েছে। এসব চরে মানববসতি গড়ে উঠেছে। শীতের শুরুতে অসংখ্য পরিযায়ী পাখি চরে ভিড় জমায়। এসব পাখির মধ্যে বিভিন্ন প্রজাতির হাঁস, সরাল, চকাচকি, বক, জিরিয়া, জৌরালি, গুলিন্দা, বাটান, গাঙচিল, পানচিল উল্লেখযোগ্য।
উপকূলীয় চরে গড়ে উঠেছে বৈচিত্র্যময় বনভূমি। এসব বনে হারগোজা, কেওড়া, কাঁকড়া, ছৈলাসহ বিভিন্ন উদ্ভিদ দেখা যায়। বেশ কিছু দ্বীপ ও স্থায়ী চরে চিত্রা হরিণ রয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন প্রজাতির সরীসৃপ ও উভচর প্রাণীও দেখা যায়। বড় বড় গাছে দেখা যায় বাদুড়। চরের বালুতে দেখা যায় সারিবদ্ধ কাঁকড়া। এছাড়া বিভিন্ন কাছিম ডিম পাড়তে বালুচরে উঠে আসে।
দেশের অভ্যন্তরীণ নদ-নদীর চর উপকূলীয় চরের তুলনায় উঁচু। এসব চরে দূর্বা, বিন্না, ছন, কাশসহ বিভিন্ন ঘাসজাতীয় উদ্ভিদ জন্মে। এ ঘাসবন বিভিন্ন প্রাণীর আশ্রয়। এ ধরনের তৃণভূমিতে তিতির, বটেরা, ঘুঘু, মুনিয়া, খঞ্জন, ফুটকি, তুলিকাসহ বিভিন্ন পাখি বিচরণ করে। স্থায়ী চরে শেয়াল, মেছোবিড়াল, বেজিসহ অন্যান্য প্রাণীও দেখা যায়।
বাংলাদেশের মোট ভূখ-ের প্রায় ১৬ ভাগ চরাঞ্চল এবং প্রায় ৩২টি জেলায় চর রয়েছে। মানববসতি গড়ে ওঠায় সেখানকার পরিবেশে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে। এছাড়া চরের গাছপালা কেটে ফেলায় আশ্রয় হারাচ্ছে অনেক বন্যপ্রাণী। প্রতিবেশব্যবস্থার ভারসাম্য বজায় রাখতে চরাঞ্চলের জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণের উদ্যোগ জরুরি।
চরাঞ্চলের জীববৈচিত্র্যের জানা-অজানা তথ্য নিয়ে এ সপ্তাহে প্রকৃতি ও জীবনের ৩০০ পর্ব ‘চরাঞ্চলের জীববৈচিত্র্য’। অনুষ্ঠানটি পরিকল্পনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনা করছেন মুকিত মজুমদার বাবু। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেছেন সিএনআরএস-এর পরিচালক আনিসুল ইসলাম। বাংলাদেশের প্রথম জীববৈচিত্র্য ও পরিবেশ নিয়ে ধারাবাহিক টেলিভিশন অনুষ্ঠান ‘প্রকৃতি ও জীবন’ প্রচারিত হচ্ছে চ্যানেল আইয়ে প্রতি বৃহ¯পতিবার রাত ১১.৩০ মিনিটে, পুনঃপ্রচার প্রতি শুক্রবার সকাল ১১.০৫ মিনিট এবং রবিবার সকাল ৫.৩০ মিনিটে।

সাপ?তাহিক পতিবেদন

 মতামত সমূহ
Author : chaiwanmei
Author : falsterboyoga
Author : inspiresatis
Author : brickolino
Author : suyuds
Author : soaringcow
Author : mcdevittmedia
Author : khyenchen
Author : balloonpunkt
Author : cmetechnology
পিছনে 
 আপনার মতামত লিখুন
English বাংলা
নাম:
ই-মেইল:
মন্তব্য :

Please enter the text shown in the image.